1. admin@protidinshikhsha.com : protidinshiksha.com :
রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ০৫:০৫ অপরাহ্ন

প্রাথমিক বিদ্যালয় ৩১ আগস্ট পর্যন্ত ছুটি, জানালেন গণশিক্ষা সচিব

  • প্রকাশিত সোমবার, ২৪ আগস্ট, ২০২০
  • ১৮৮ বার পড়া হয়েছে

আগামী ৩১ আগস্ট পর্যন্ত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ছুটি জানালেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব আকরাম হোসেন।

তিনি আরো বলেন, এখন পর্যন্ত করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়ায় সেপ্টেম্বর থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সম্ভাবনা খুব কম।

পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে শিক্ষার্থীদের ঝুঁকিতে ফেলা হবে না।

পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে নতুন করে ছুটি বাড়ানো হবে। সেপ্টেম্বরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার মতো পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়নি।

এদিকে বাংলাদেশ শিক্ষা পর্যবেক্ষক সোসাইটি (বিএফবিএস) দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া এবং করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে শিক্ষার্থীদের বেতন মওকুফসহ দেশের শিক্ষা সংকট নিরসনের লক্ষ্যে ১৪ দফা দাবি জানিয়েছে।

সোমবার (২৪ আগস্ট) তারা জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে একটি মানববন্ধন করে। পরবর্তীতে প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি দেয়া হবে।

করোনাভাইরাসের কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকা দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো সেপ্টেম্বরে খোলার কথা থাকলেও সেই সম্ভাবনা কম বলে জানিয়েছেন প্রাথমিক শিক্ষা সচিব মোঃ আকরাম-আল-হোসেন।

তবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার ব্যাপারে বেশ কয়েকটি প্রস্তুাবনা প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠানো হয়েছে। সে ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন পেলেই সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলেও জানান সচিব।

তিনি আরো বলেন, করোনার কারণে এ বছর পিইসি বা প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা না নেয়ার প্রস্তাব দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে সারসংক্ষেপ পাঠানো হলেও এখনো এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি।

প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন পেলেই দ্রুত সিদ্ধান্ত ও তা বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেয়া হবে।

এছাড়া স্কুল খুললে, স্ব স্ব স্কুলে কিভাবে পরীক্ষা নেয়া হবে, কিভাবে ক্লাস হবে সে ব্যাপারে নীতিমালা প্রস্তুত করা হচ্ছে।

বিগত পাঁচ মাস ধরে দেশের শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ রাখা হয়েছে। তবে শিগগিরই শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার কথা শোনা যাচ্ছে।

কিন্তু সচেতন অভিভাবকরা বলছেন, টিকা আসার আগে শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান খুলে দিলে করোনার ঝুঁকি আরও বাড়তে পারে।

সরকারের পূর্ব সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ৩১ আগস্ট পর্যন্ত বন্ধ থাকবে শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান। তবে এতে থেমে নেই শিক্ষা কার্যক্রম।

অনলাইনভিত্তিক পাঠদান চলছে। অনুকূল পরিবেশ তৈরি হলে শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানগুলো খুলে দেওয়া কথাও ভাবছে সরকার।

অভিভাবকরা বলছেন, এখনই খুলে দিলে লাভের চেয়ে ক্ষতির সম্মুখীন বেশি হতে হবে। এতে করোনা আক্রান্তের হার বাড়তে পারে।

শিক্ষকরা বলছেন, সরকার সিদ্ধান্ত নিলে প্রথমেই পরীক্ষামূলকভাবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খুলতে পারে। প্রথমেই প্রাথমিক ও মাধ্যমিক কোনো শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান খোলা একেবারেই ঠিক হবে না।

দেশের শিক্ষার্থীদের বড় একটি অংশে রয়েছে শিশুরা। প্রাপ্তবয়ষ্ক শিক্ষার্থীরা নিরাপদ শারীরিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে পারলেও শিশুরা এ বিষয়ে অনেক অবুঝ। এমন পরিস্থিতিতে নিজের সন্তানকে বাইরে বেরোতে দেওয়াই ঝুঁকিপূর্ণ।

এর আগে সরকার গত ১৭ মার্চ থেকে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করে।

তবে সম্প্রতি অফিস-আদালত খুলে দেয়ায় বিভিন্ন মহলের সমালোচনার প্রেক্ষিতে এনিয়ে শিক্ষামন্ত্রণায় কয়েকটি প্রস্তুাব প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠানো হয়েছে।

সেই প্রস্তুাবগুলোর বিবেচনা করে প্রধানমন্ত্রীই সিদ্ধান্ত নেবে চলমান পরিস্থিতিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা যায় কি না।

যদিও আগামী ৩১ আগস্ট পর্যন্ত সরকারের পূর্ব অনুযায়ী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
২০২০ প্রতিদিন শিক্ষা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায় মাল্টিকেয়ার

প্রযুক্তি সহায়তায় মাল্টিকেয়ার